ব্লগার সেটিংস সম্পর্কে খুটিনাটি এবং সম্পূর্ন বিস্তারিত।

ব্লগিং এর ধারাবাহিক পর্বের ৫ম পর্বে আজ আলোচনা করব On Page SEO এর অন্তর্গত ব্লগারের অতি গুরুত্বপূর্ণ ব্লগার সেটিংস সম্পর্কে।

আপনার নতুন ব্লগ বা ওয়েবসাইট গুগল সার্চ ইঞ্জিনে ইনডেক্স করার জন্য ব্লগার সেটিংস এ সব কাজ সঠিকভাবে সম্পাদন করার পর Google Search console এ আপনার সাইটি যুক্ত করতে হবে। আজ আমি ব্লগার অন পেজ এসইও এর অন্তর্গত ব্লগার সেটিংস সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করব।

ব্লগিং এর ধারাবাহিক পর্ব গুলোর মধ্যে রয়েছে

ব্লগার সেটিংস গুলো সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচন

ব্লগারে নতুন ব্লগ বা ওয়েবসাইট তৈরি করার পর তা স্বয়ংক্রিয়ভাবে সার্চ ইঞ্জিনে যুক্ত হয় না। অর্থাৎ তৈরি করা নতুন ব্লগ আপনি গুগল বা অন্য কোন সার্চ ইঞ্জিনের মাধ্যমে সার্চ করলে আপনার ব্লগ টি উক্ত সার্চ রেজাল্টে পাওয়া যাবে না। গুগোল সার্চ ইঞ্জিনে আপনার ব্লগ বা ওয়েবসাইট অন পেজ এসইও এর মাধ্যমে ম্যানুয়ালি ইন্ডেক্স করতে হবে। আর এই কাজটি করতে হয় ব্লগার সেটিংস অপশন থেকে।

অন পেজ এসইও এর অংশ হিসাবে সার্চ ইঞ্জিনে ব্লগ বা ওয়েবসাইট ইনডেক্স করার জন্য বা আপনার ব্লগ বা ওয়েব সাইটটি পাবলিস করার ক্ষেত্রে ব্লগার সেটিংস এর যে অপশন গুলো অবশ্যই পরিবর্তন বা সংশোধন করতে হবে নিচে সেই বিষয়গুলো সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হলো।

Basic

Title

ব্লগার সেটিংস এর প্রথম অপশনটিই Title। আপনার ব্লগ বা ওয়েবসাইটে যে বিষয়ের সাথে সম্পর্কিত সেই বিষয় সম্পর্কে একটি টাইটেল যুক্ত করতে হবে। এটি অনেকটা স্লোগান এর মত। মনে করুন আপনার ব্লগ বা ওয়েব সাইটটি ভ্রমণ বিষয়ক। তাহলে টাইটেলে আপনি লিখতে পারেন “চলনা ঘুরে আসি” বা আপনার ব্লগ বা ওয়েব সাইট এর বিষয় সম্পর্কিত যেকোনো কিছু এমন কোন টাইটেল যা আপনার পছন্দ।

Description

এখানে আপনার ব্লগ বা ওয়েব সাইট সম্পর্কিত কয়েকটি বাক্য লিখতে হবে। অর্থাৎ আপনার ব্লগ বা ওয়েবসাইট কিসের সাথে সম্পর্কিত এবং আপনি কি ধরনের সেবা প্রদান করেছেন ইত্যাদি বিষয়ক। এখানে সর্বোচ্চ ৫০০ ক্যারেক্টর লিখতে পারবেন। অর্থাৎ ৫০০ ক্যারেক্টর এর মধ্যে আপনার ব্লগ সম্পর্কিত কিছু কথা এখানে লিখে ফেলুন। তবে খেয়াল রাখবেন আপনার ব্লগ বা ওয়েবসাইটের মেইন ফোকাসিং কিওয়ার্ড অবশ্যই ডিসক্রিপশন এর মধ্যে টাইপ করবেন। যেমন আপনার ওয়েবসাইট ভ্রমণবিষয়ক হলে “Travel”, স্বাস্থ্য বিষয়ক হলে “Health”, আবার অর্থ উপার্জন বিষয়ক হলে “Online Earning”

Blog Language

এখানে ব্লগ ল্যাঙ্গুয়েজ সিলেক্ট করতে হবে। অর্থাৎ আপনি যদি ইংরেজিতে ব্লগিং করেন তাহলে অবশ্যই ভাষা “English” থাকবে এবং বাংলায় ব্লগিং করলে অবশ্যই বাংলা ভাষা সিলেক্ট করে দিবেন। Blogger Settings এ ভাষা নির্বাচন খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়।

Adult content

ব্লগার সেটিংস এ Adult content অপশনটি খুবই গুরুত্বপূর্ন। Adult content মুলত আপনার ব্লগ বা ওয়েবসাইট শিশুদের জন্য উপযোগী কিনা সেটা নির্দেশ করে। আপনার ব্লগ বা ওয়েবসাইটে যদি Adult content বিষয়ে লেখালেখি করেন তাহলে অবশ্যই এখানে Adult content অপশনটি মার্ক করে দিবেন। নতুবা গুগল এডসেন্স এর ক্ষেত্রে অনেক সমস্যায় পড়তে পারেন।

মনে করুন আপনি এডাল্ট কনটেন্ট এর উপর আর্টিকেল পাবলিশ করেছেন কিন্তু Blogger settingsAdult content মার্ক করে দেননি তাহলে আপনার এডসেন্স যেমন ডিজাবল হয়ে যেতে পারে তেমনি গুগোল আপনার ব্লগার এর ব্লগ বা ওয়েবসাইটটি ডিলিট করে দিতে পারে।

Google Analytics Property ID

Google Analytics এর এই অপশনটি গুগল এডসেন্স এর জন্য খুব বেশি গুরুত্বপূর্ণ না হলেও এটি আপনার জন্য অনেক অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ। আপনার ওয়েবসাইটের স্ট্যাটিস্টিক দেখার জন্য অর্থাৎ কোন দিন কতজন মানুষ আপনার ওয়েবসাইট ভিজিট করছে কোন দেশ থেকে ভিজিট করছে এবং কোন ডিভাইস দিয়ে ভিজিট করছে তা সম্পূর্ণ বিস্তারিত জানতে আপনার ওয়েবসাইটটি অবশ্যই Google Analytics এ এড করতে হবে। এছাড়া Google Analytics এর মাধ্যমে আপনার ব্লগ বা ওয়েব সাইটের বাউন্স রেট থেকে শুরু করে সেশন পর্যন্ত সকল কিছুই দেখতে পাবেন।

Favicon

গুগল এডসেন্স এর জন্য আবেদন এর পূর্বে বা পরে অবশ্যই আপনার ব্লগ বা ওয়েবসাইটের জন্য লোগো তৈরির পাশাপাশি একটি Favicon যুক্ত করে নিবেন। যে কোন ব্লগ বা ওয়েবসাইটের একটি প্রফেশনাল লুক এর জন্য Favicon খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

Privacy

স্বয়ংক্রিয়ভাবে প্রাইভেসি অপশন এ Visible to search engine অন করা থাকবে। তবে এটি যদি অফ থাকে তাহলে অবশ্যই অন করে নিবেন। কারণ এই অপশনটি অফ করা থাকলে আপনার ব্লগ বা ওয়েবসাইট কখনোই গুগল সার্চ ইঞ্জিনে প্রদর্শিত হবে না। খুবই ছোট্ট একটি কাজ হলেও এটি অনেক অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ।

Publishing

Blog address

এখানে আপনার ব্লগের সাবডোমেইন যুক্ত রয়েছে। যা গুগোল ফ্রিতে দিয়ে থাকে। সাবডোমেইন হচ্ছে আপনার মূল ডোমেইন এর সাথে অতিরিক্ত .blogspot.com এইযে এক্সটেনশনটি যুক্ত রয়েছে সেটি। সাবডোমেইন সম্পূর্ণ ফ্রি। সাবডোমেইন এর মাধ্যমেই আপনি গুগল এডসেন্স থেকে অ্যাপ্রভাল নিতে পারবেন। অর্থাৎ গুগল এডসেন্সের অ্যাপ্রভাল নিতে সাবডোমেইন কোন সমস্যা নয়।

Custom domain

আপনি যদি আপনার ব্লগ বা ওয়েবসাইটকে একটি প্রফেশনাল লুক দেওয়ার জন্য টপ লেভেল ডোমেইন অর্থাৎ শুধুমাত্র “yourname.com” যুক্ত করতে চান তাহলে তার জন্য আপনাকে যে কোন কোম্পানির নিকট থেকে ডোমেইন ক্রয় করতে হবে। অতঃপর এখানে ব্লগার এর সাথে যুক্ত করতে পারবেন।

HTTPS

গুগোল ব্লগার প্লাটফর্মের জন্য বিনামূল্যে SSL certificate সেবা প্রদান করে থাকে। অর্থাৎ স্বাভাবিক ভাবে যে কোন ডোমেইন HTTP এর আন্ডারে থাকে যে কানেকশনটি সিকিউর নয়। সুতরাং আপনি HTTPS redirect অপশনটি অন করার মাধ্যমে স্বয়ংক্রিয়ভাবে HTTPS সিকিউরিটি পেয়ে যাবেন। যদিও স্বয়ংক্রিয়ভাবে এই অপশনটি অন করা থাকে তবুও এটি চেক করে নিবেন যদি অফ থাকে তাহলে অবশ্যই এটি অন করে নিবেন। SSL certificate কি এ বিষয়ে পরবর্তী আর্টিকেল গুলোতে বিস্তারিত আলোচনা করা হবে।

Formatting

আপনার ব্লগ বা ওয়েবসাইট যদি বাংলায় হয়ে থাকে তাহলে অবশ্যই Time Zone এ বাংলাদেশ এর Time Zone সিলেক্ট করে দিবেন। তবে যদি ইংরেজিতে ব্লগ হয়ে থাকে তাহলে Time Zone পরিবর্তন না করলেও সমস্যা হবে না। তবে যে দেশ থেকে আপনি আপনার ব্লগ বা ওয়েবসাইটকে অপারেট করবেন সেই দেশের Time Zone সিলেক্ট করে দেয়া উত্তম।

Meta tags

ব্লগার সেটিংস এর এই সেকশনটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আপনার ব্লগ বা ওয়েবসাইট যে বিষয়ের সাথে সম্পর্কিত সেই বিষয়ে Main Focusing Keyword গুলো এখানে যুক্ত করুন। আপনার ব্লগ বা ওয়েবসাইট যদি অনলাইনে অর্থ উপার্জনের ওপর হয়ে থাকে তাহলে “Online Earning”, স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পর্কিত হলে “Health and fitness”, এবং ভ্রমণবিষয়ক হলে “Travel” এইভাবে কিওয়ার্ডগুলো টাইপ করে দিবেন। Meta tags গুগোল রোবটের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এর মাধ্যমে গুগোল বুঝতে পারে আপনার ওয়েবসাইট বা ব্লগ টি কোন বিষয়ের সাথে সম্পর্কিত এবং কোন ধরনের বিজ্ঞাপন গুলো আপনার ব্লগ বা ওয়েবসাইটে দেখানো যাবে।

Crawlers and indexing

এখন আলোচনা করা হবে ব্লগার সেটিংস এর সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ সেটিংস Crawlers and indexing সম্পর্কে। এখানে কোন প্রকার ভুল হলে আপনার ব্লগ বা ওয়েবসাইটকে গুগল ইনডেক্স হবে না।

প্রথমে “Enable custom robots.txt” অপশনটি Enable করুন। এরপর তার ঠিক নিচে Custom robots.txt অপশনটি Enable হয়েছে, সেখানে ক্লিক করলে একটি বক্স ওপেন হবে। এখানে আপনার ব্লগ বা ওয়েবসাইটের XML sitemap Code সাবমিট করতে হবে। XMl Sitemap তৈরি করতে নিচের নির্দেশিকা গুলো যথাযথ ভাবে অনুসরণ করুন এবং মনে রাখবেন আপনার ব্লগে অন্তত কমপক্ষে ৩/৪ টি আর্টিকেল থাকতে হবে।

প্রথমে Custom robots.txt এর জন্য একটি সাইটম্যাপ তৈরী করতে হবে। ব্লগারের সাইটম্যাপ তৈরি জন্য এখানে ক্লিক করুন। নতুন যে ওয়েব পেজটি ওপেন হবে সেখানে স্ক্রলিং করে একটু নিচের দিকে গেলেই উপরের ছবির ন্যায় “Generate XML Sitemaps for Blogger” দেখতে পাবেন এখানে আপনার ব্লগ বা ওয়েবসাইটের লিংকটি পেস্ট করুন এবং Generate Sitemap এ ক্লিক করুন।

উপরের ছবির ন্যায় আপনার ব্লগ বা ওয়েবসাইটের XML Sitemap তৈরি হবে। অতঃপর বক্সে থাকা সম্পূর্ণ XML Code গুলো কপি করুন।

# Blogger Sitemap created on Sat, 13 Jun 2020 05:35:14 GMT
# Sitemap built with https://www.labnol.org/blogger/sitemap

User-agent: *
Disallow: /search
Allow: /

Sitemap: http://notunblogger.blogspot.com/atom.xml?redirect=false&start-index=1&max-results=500

সতর্কতাঃ

এখানে আপনাকে একটু Edit করতে হবে। যা খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

স্বাভাবিকভাবে XML ফাইলটি উপরের ন্যায় থাকবে। উপরের কোড গুলোতে দেখতে পারছেন Disallow: / search অর্থাৎ শুধুমাত্র সার্চ Disallow করা আছে। এখানে আপনাকে অতিরিক্ত Category এবং Tags Disallow করে দিতে হবে। নতুবা Google Search console আপনার ব্লগ বা ওয়েবসাইটের আর্টিকেলগুলো কে ডুপ্লিকেট কন্টেন্ট হিসেবে কাউন্ট করবে যা গুগল রেংকিং এর ক্ষেত্রে খুবই অসুবিধা তৈরি করবে। কেননা আমরা একই ক্যাটাগরির আন্ডারে অনেকগুলো আর্টিকেল লিখে থাকি। আর আমরা যখন Category এবং Tags Disallow না করব তখন Google ঐ আর্টিকেল গুলোকে ডুপ্লিকেট হিসেবে কাউন্ট করবে।

# Blogger Sitemap created on Sat, 13 Jun 2020 05:35:14 GMT
# Sitemap built with https://www.labnol.org/blogger/sitemap

User-agent: *
Disallow: /search
Disallow: /category/
Disallow: /tag/
Allow: /

Sitemap: http://notunblogger.blogspot.com/atom.xml?redirect=false&start-index=1&max-results=500

সুতরাং উপরের ছবির ন্যায় Disallow তে অতিরিক্ত Category এবং Tag যুক্ত করে তারপর ব্লগারের robot.txt তে কোডগুলো আপলোড করে দিন।

ব্লগারের robot.txt তে কোডগুলো আপলোড করে Save বাটনে ক্লিক করুন।

অতিরিক্ত বিষয়

এখানে আরো একটি বিষয় লক্ষ্য করুন আপনার XML Sitemap এর একদম শেষে 500 একটি সংখ্যা রয়েছে। এর অর্থ হচ্ছে এই সাইট ম্যাপ কোড দ্বারা গুগোল আপনার ব্লগ বা ওয়েবসাইটের 500 টি আর্টিকেল পর্যন্ত ইন্ডেক্স করতে পারবে। এখন যদি আপনার ব্লগ বা ওয়েবসাইটের আর্টিকেল গুলো 500 এর বেশি হয়ে যায়। তাহলে কোডগুলির সবশেষে Sitemap এর যে লাইনটি দেখতে পাচ্ছেন শুধুমাত্র সেই লাইনটি পুনরায় কপি করে 1 এর জায়গায় 501 এবং 500 এর জায়গায় 1000 দিয়ে পুনরায় নিচে পেস্ট করে দিন অতঃপর সে বাটনে ক্লিক করুন। তাহলে গুগোল আপনার ব্লগ বা ওয়েবসাইটের 1000 আর্টিকেল পর্যন্ত ইন্টেক্স করবে। আরো ভালো ভাবে বুঝতে নিচের ছবিটি লক্ষ্য করুন।

# Blogger Sitemap created on Sat, 13 Jun 2020 05:35:14 GMT
# Sitemap built with https://www.labnol.org/blogger/sitemap

User-agent: *
Disallow: /search
Disallow: /category/
Disallow: /tag/
Allow: /

Sitemap: http://notunblogger.blogspot.com/atom.xml?redirect=false&start-index=1&max-results=500
Sitemap: http://notunblogger.blogspot.com/atom.xml?redirect=false&start-index=501&max-results=1000

আপনার ব্লগ বা ওয়েবসাইটের আর্টিকেল সমূহ যখন 500 এর বেশি হয়ে যাবে তখন উপরের কোডগুলার ন্যায় শুধুমাত্র নিচের Sitemap এর লাইনটি পুনরায় কপি এবং এডিট করে সংখ্যাগুলি বাড়িয়ে পুনরায় সেভ করুন।

Enable custom robots header tags

উপরের কার্যসমূহ সঠিকভাবে সম্পাদনের পর এবার Enable custom robots header tags অপশনটি Enable করুন। এরপর খুবই সতর্কতার সাথে Home page tags, Archive and search page tags এবং Post and page tags এর অপশনগুলি নিচের ছবি অনুসারে মার্ক করুন।

Home page tags

Home page tags এর ক্ষেত্রে All এবং noodp মার্ক করুন।

Archive and search page tags

Archive and search page tags এর ক্ষেত্রে noindex এবং noodp মার্ক করুন।

Post and page tags

Post and page tags এর ক্ষেত্রে All এবং noodp মার্ক করুন।

উপরের এই তিনটি অপশন খুবই সতর্কতার সাথে সম্পাদন করুন। এখানে কোন প্রকার ভুল হলে Google Search console এ অনেক সমস্যার সম্মুখীন হবেন।

Monetization

যারা নতুন ব্লগ বা ওয়েবসাইট তৈরি করেছেন এই অপশনটি তাদের জন্য নয়। আপনি যখন Adsence Approval পেয়ে যাবেন তখন Monetization এর এই অপশনটিতে আপনার AdSense এর Publisher id টি যুক্ত করুন। নতুবা আপনার আর্নিংস এ সমস্যা দেখা দিতে পারে।

Monetization এর Enable custom ads.txt অপশনটি Enable করুন। এবং এরপর নিচের Custom ads.txt অপশনটিতে ক্লিক করলেই একটি বক্স ওপেন হবে এখানে আপনার Google AdSense এর publisher ID পেষ্ট করে সেভ বাটনে ক্লিক করুন।
Google AdSense এর Publisher ID কিভাবে পাবেন তা Google এর সাপোর্টিং পেজ এখানে ক্লিক করতে পারেন।

অথবা কোন অবস্থাতে যদি আপনি আপনার পাবলিশার আইডি খুঁজে না পান বা আপনার ব্লগারের মনিটাইজেশন এ যুক্ত করতে না পারেন তাহলে নিচের কার্যপদ্ধতি অনুসরণ করুন।

“সর্বপ্রথম আপনার Google AdSense এর একাউন্টে লগইন করুন। এখন বামপাশের সাইডবারে নিচের দিকে Account এ ক্লিক করুন। এখানে আপনার Publisher ID, Customer ID সহ সব ডিটেইলস রয়েছে। এখান থেকে আপনি আপনার পাবলিশার আইডি টি কপি করুন।”

google.com, pub-0000000000000000, DIRECT, f08c47fec0942fa0

উপরের কোড গুলি লক্ষ্য করুন। এখানে pub-0000000000000000 এর জায়গায় আপনার পাবলিশার আইডিটি পেস্ট করুন। অতঃপর সম্পূর্ণ কোডটি কপি করে Blogger settingsMonetization এর Custom ads.txt বক্সে সম্পূর্ণ কোডটি পেস্ট করুন অতঃপর সেভ বাটনে ক্লিক করুন।

উদাহরণস্বরূপ আপনার পাবলিশার আইডিটি যদি pub-1234567899876543 এমন হয়, তাহলে আপনার পাবলিশার আইডিসহ সম্পূর্ণ কোটি এভাবে উপরের ছবির ন্যায় Custom ads.txt তে পেস্ট করে সেভ বাটনে ক্লিক করুন।

উপরের কার্যক্রমগুলো সঠিকভাবে সম্পাদন করা হয়ে গেলে আপনার ব্লগারের অন পেজ এসইও এর ব্লগার সেটিংস এর সকল কাজ যথাযথভাবে সম্পাদন হয়েছে। এখন শুধু Google search console এ আপনার ব্লগ বা ওয়েবসাইট যুক্ত করতে হবে।

Share this

2 thoughts on “ব্লগার সেটিংস সম্পর্কে খুটিনাটি এবং সম্পূর্ন বিস্তারিত।”

    • এটার অর্থ হলো, গুগল রোবট আপনার সাইটের কোন কোন Element গুলো ইনডেক্স করবে আর কোন গুলো করবে না। যেগুলো Noindex করা থাকবে সেগুলো গুগোল ইনডেক্স করবে না।
      যেমন ধরুন Archive and search page tags এগুলো ইন্ডেক্স করলে গুগোল রোবট বুঝবে আপনার সাইটে ডুপ্লিকেট কন্টেন্ট আছে। যা সার্চ ইঙ্গিন র‍্যাঙ্কিং এর ক্ষেত্রে ক্ষতিকর।
      আবার আপনি যদি Post and page tags ভুল করে Noindex দিয়ে ফেলেন তাহলে গুগোল আপনার সাইটের Post ইনডেক্স করবে না।
      সুতরাং এই অপশন গুলি অতি সতর্কতার সাথে করতে হবে।

      Reply

Leave a Comment