ফেসবুক পেজ জনপ্রিয় করার উপায় সমুহ।

ফেসবুক পেজ জনপ্রিয় করার উপায় সম্পর্কিত আজকের আর্টিকেলে আমি আলোচনা করবো কিভাবে ফেসবুক পেজ জনপ্রিয় করার মাধ্যমে আপনার পেজে অর্গানিক ট্রাফিক নিয়ে আসবেন।

ফেসবুক এখন কেবল বিনোদনের মাধ্যম নয়, বরং উপার্জনের ও একটি গুরুত্বপূর্ন মাধ্যম। আপনারা হয়তবা জেনে থাকবেন ইউটিউবের মতো ফেইসবুকেও এখন ইনকামের ব্যবস্থা রয়েছে। যার কারনে ফেসবুকে অর্গানিক ট্রাফিক এর গুরুত্ব দিন দিন বেড়েই চলেছে।

ফেসবুক পেজে অর্গানিক ট্রাফিক আনা আর ফেসবুক পেজ জনপ্রিয় করার উপায় প্রায় একই। কারন আপনার পেজে অর্গানিক ট্রাফিক তখনই আসবে যখন আপনার পেজ জনপ্রিয় হয়ে উঠবে।

We Bangla ফেসবুক পেজ

ফেসবুক পেজ জনপ্রিয় করার উপায়

নিচে ফেসবুক পেজে অর্গানিক ট্রাফিক বা ফেসবুক পেজ জনপ্রিয় করার উপায় এর কয়েকটি গুরুত্বপূর্ন দিক নির্দেশনা সম্পর্কে আলোচনা করা হলো –

টাইটেল – ডেসক্রিপশন

ফেসবুকে আপনার কন্টেন্ট আপলোডের ক্ষেত্রে অবশ্যই টাইটেল এবং ডেসক্রিপশন এর দিকে লক্ষ্য রাখুন। আপনার পেজে অর্গানিক ভিউ এর ক্ষেত্রে টাইটেল এবং ডেসক্রিপশন খুবই গুরুত্বপূর্ন ভূমিকা পালন করে।

যেসব দিক অবশ্যই বিবেচনায় রাখবেন –

  • কন্টেন্ট এর টপিক রিলেটেড হয় টাইটেল এবং ডেসক্রিপশন।
  • মূল কিওয়ার্ড এর ব্যবহার।
  • সংক্ষিপ্ত টাইটেল ব্যবহার।

টাইটেল এবং ডেসক্রিপশন কতটা গুরুত্বপূর্ন সেটা বুঝতে যে কোন কিওয়ার্ড লিখে ফেসবুকে সার্চ দিলে দেখতে পাবেন। আপনার সার্চকৃত কিওয়ার্ডটি প্রদর্শিত ফলাফল সমুহের টাইটেল এবং ডেসক্রিপশনে বিদ্যমান রয়েছে।

সুতরাং বুঝতেই পারছেন ফেসবুক পেজ জনপ্রিয় করার উপায় এর ক্ষেত্রে সঠিক ভাবে কিওয়ার্ড গুলো টাইটেল এবং ডেসক্রিপশনে প্লেসমেন্ট করা কতটা গুরুত্বপূর্ন।

আরো পড়ুন –
Shutterstock এ মোবাইল দিয়ে তোলা ছবি বিক্রি করে আয় করুন।
অনলাইন থেকে পেমেন্ট এর জন্য এখনই খুলে নিন Skrill অ্যাকাউন্ট এবং ১০০% ভেরিফাই করুন।

নিশ রিলেটেড কন্টেন্ট

ফেসবুক পেজের অর্গানিক ভিউ বৃদ্ধির জন্য আপনার নিশ রিলেটেড কন্টেন্ট খুবই গুরুত্বপূর্ন। আপনি যে টপিক এর উপর কাজ করছেন সেই টপিক এর উপর কন্টেন্ট তৈরি করার চেষ্টা করুন।

যে কোন প্লাটফর্ম, হোক সেটা ইউটিউব বা ফেসবুক, নিশ রিলেটেড কন্টেন্ট এর একটা আলাদা গুরুত্ব রয়েছে।

মনেকরুন আপনি একদিন ট্রাভেল ভিডিও, আবার একদিন ফানি ভিডিও, আবার একদিন গেমের ভিডিও আপলোড করছেন। তার মানে আপনার পেজটি একটি জগা-খেচুরি পেজ। আপনি নিজের কাছেই প্রশ্ন করুন, এই ধরনের চ্যানেল বা পেজ আপনি কোন ক্যাটাগরিতে ফেলবেন।

আরো একটি বিষয় লক্ষ্য করলে দেখতে পাবেন এই ধরনের চ্যানেল বা পেজের জন্য ইউটিউব বা ফেসবুকে কোন প্রকার ক্যাটাগরি পাবেন না। সুতরাং কোন প্লাটফর্ম ও চায় না আপনি কোন ক্যাটাগরি ছাড়া বিভিন্ন ধরনের ভিডিও আপলোড করেন।

তাই সবার প্রথমে খুজে বের করুন আপনি কোন বিষয়ে দক্ষ এবং কোন বিষয়ে কাজ করতে আপনি ভালোবাসেন। সেই বিষয় নিয়েই কাজ করুন। মনে রাখবেন, আপনার কাজের প্রতি আগ্রহই আপনার সাফল্যের চাবিকাঠি।

আপনি হয়তবা রি-ভিজিটর সম্পর্কে জেনে থাকবেন। অর্থাৎ কোন একজন ভিজিটর একবার আপনার পেজ ভিজিট করার পর পরবর্তীতে পুনরায় যদি আপনার সাইট ভিজিট করে তাহলে সেটা রি-ভিজিট হিসাবে গন্য হবে।

যেটা গুগল, ইউটিউব, ফেসবুক তথা যে কোন প্লাটফর্মের অ্যালগরিদমে খুবই গুরুত্বপূর্ন।

আর যে কোন সাইটের রি ভিজিটর বৃদ্ধি করতে হলে আপনাকে অবশ্যই কোন নিশ নিয়ে কাজ করতে হবে। কেননা মানসম্মত কন্টেন্ট এর পাশাপাশি নির্দিষ্ট বিষয়ে কিছু পড়তেই মানুষ নির্দিষ্ট নিশ রিলেটেড সাইট ভিজিট করে থাকে।

ফেইসবুক গ্রুপ

ফেসবুক পেজ জনপ্রিয় করার উপায় সমুহের মধ্যে ফেসবুক গ্রুপ খুবই গুরুত্বপূর্ন ভূমিকা পালন করে।

আপনার ফেসবুক পেজের পাশাপাশি উক্ত নামে একটি গ্রুপ তৈরি করুন। কেননা গ্রুপ হতে আপনি সর্বাধিক পরিমান পোষ্ট এনগেজমেন্ট অর্জন করতে পারবেন। খুব অল্প সময়ের মধ্যে ভিডিও ভিউ বা পোষ্ট এনগেজমেন্ট বৃদ্ধি করতে গ্রুপ খুবই কার্যকরী ভুমিকা পালন করে।

গ্রুপ এমনই একটি জায়গা যেখান হতে আপনি যে কোন প্লাটফর্মে ট্রাফিক নিয়ে যেতে পারেন।

যেমন আপনার যদি ভালো একটি গ্রুপ থাকে, অর্থাৎ গ্রুপে ভালো পরিমান অ্যাক্টিভ মেম্বর থাকে, তাহলে আপনি চাইলে সেই মেম্বরদের আপনার ওয়েবসাইটেও নিয়ে আসতে পারেন। আবার আপনার ফেইসবুক পেইজ এর অর্গানিক ভিউও বৃদ্ধি করতে পারেন।

সর্বোপরি আপনি আপনার গ্রুপটিকে নানাবিধ উদ্দেশ্যে ব্যবহার করতে পারেন।

3rd পার্টি লিংক ব্যবহার

পেজে ভিডিও পোষ্টের সাথে সাথে আমরা ভিডিওটির ডেসক্রিপশন বক্সে ইউটিউব বা অন্য কোন সাইটের লিংক ব্যবহার করে থাকি। কিন্তু এটা মাঝে মাঝে অর্গানিক ট্রাফিক না আসার কারন হয়ে দাড়াতে পারে।

যদিও এই ধরনের কোন নিতিমালা ফেসবুক কতৃক প্রনয়ন করা হয়নি। তবুও বেশির ভাগ সোস্যাল মিডিয়া মার্কেটারদের মতে, কোন সোস্যাল মিডিয়া প্লাটফর্মই চায় না তাদের নিকট হতে পাওয়া ট্রাফিক আপনি অন্য কোথাও কনভার্ট করে নিয়ে যান।

ভিডিও বুস্ট

ইউটিউব এমনই একটি প্লাটফর্ম যেখানে আপনি কোন ভিডিও বুস্ট না করেই জিরো সাবস্ক্রাইব হতেই অর্গানিক ট্রাফিক পাবেন। কিন্তু ফেসবুকের ক্ষেত্রে সেটা হয় না। আর তাই ফেসবুক পেজ জনপ্রিয় করার উপায় সমুহের মধ্যে এটিও অনেক গুরুত্বপূর্ন।

যেমন আপনি যদি ইউটিউবে নতুন চ্যানেল তৈরি করেন এবং ভিডিও আপলোড করেন।
তাহলে চ্যানেলটিতে জিরো সাবস্ক্রাইবার থাকা সত্বেও আপনার ভিডিও অর্গানিক ভাবেই ভিউ পেতে থাকবে।

কিন্তু ফেসবুকের ক্ষেত্রে বিষয়টি এমন নয়। নতুন পেজ শূন্য ফলোয়ার এমন অবস্থায় আপনার ভিডিও তে অর্গানিক ভিউ এর সম্ভাবনা খুবই কম।

তবে সেক্ষেত্রে হতাশ হবার কিছুই নেই। আপনার পেজটি যদি নতুন হয়ে থাকে তাহলে আপনাকে প্রচুর পরিমানে আপনার কন্টেন্ট শেয়ার করতে হবে। যত বেশি শেয়ার করবেন ততো বেশি অর্গানিক রিচ হবার সম্ভাবনা বৃদ্ধি পাবে।

ফেসবুক পেজ জনপ্রিয় করার উপায়

এক্ষেত্রে সবচেয়ে কার্যকরী হতে পারে ভিডিও বুস্ট অপশনটি। আমি ফেসবুকের পক্ষ হতে ৫ ডলার ফ্রি কুপন পেয়েছিলাম যার মাধ্যমে ফ্রি বুস্ট করে দুটি ভিডিওতে ৩৮০০০ সমপরিমান People reach পেয়েছিলাম। তবে মাত্র ৩৮০০০ People reach এর মধ্যেই বুস্টটি সীমাবদ্ধ ছিলো না।

মাত্র ৫ ডলারের বুস্টে পরবর্তীতে আমার ভিডিওটিতে ২,৯৩,০০০ (দুই লক্ষ্য তিরানব্বই হাজার) অর্গানিক ভিউ পেয়েছিলাম।

সুতরাং আপনি যদি মনে করেন আপনার ভিডিওটি ভিউ পাবার যোগ্য কিন্তু কোন কারনে যথাযথ ভিউ হচ্ছে না। তাহলে আপনি আপনার ভিডিওটি বুস্ট করতে পারেন।

যেহেতু পুরো বিশ্বে এমনকি আমাদের দেশেও প্রচুর ফেসবুক ব্যবহারকারী রয়েছে। সেহেতু নিজস্ব অভিজ্ঞতা থেকে বলতে পারি। আপনার কন্টেন্ট যদি ভালো হয় তাহলে ভিউ না হলে বুস্ট করতে পারেন। ফেইসবুকে বুস্ট ইউটিউবের মতো জলে যাবে না।

কোলাবোরেশন

ফেসবুক পেজ জনপ্রিয় করার উপায় গুলোর মধ্যে কোলাবোরেশনও খুবই কার্যকরী ভূমিকা পালন করে। তবে এই প্রক্রিয়া সবার পক্ষে সম্ভব হয় না।

কোলাবোরেশন হলো আপনার নিশ রিলেটেড কোন অন্য কোন পেজের সাথে কন্টাক্ট করে সেই পেজের মাধ্যমে আপনার পেজের পরিচিতি ও প্রচার করা। এর মাধ্যমে খুবই কম সময়ে যেমন আপনার পেজে জনপ্রিয় হয়ে উঠবে ঠিক তেমনি অল্প সময়ের মধ্যে আপনার পেজে অর্গানিক ট্রাফিক বৃদ্ধি পাবে।

আপনার যদি এই ধরনের কোন সুযোগ সুবিধা না থাকে তাহলে এই প্রক্রিয়া বাদ দিতে পারেন।

হ্যাস ট্যাগ এর ব্যবহার

ফেসবুকে ভিডিও আপলোডের ক্ষেত্রে হ্যাস ট্যাগ তেমন কোন গুরুত্ব বহন করে না বললেই চলে। তবে ভিডিও আপলোডের সময় ডিফল্ট ভাবে যে ট্যাগের অপশন রয়েছে সেখানে সেখানে অবশ্যই সঠিক ট্যাগ ব্যবহার করবেন।

আমার নিজের পেজেও কোন ভিডিওতে হ্যাস ট্যাগ ব্যবহার না কার সত্বেও অর্গানিক ভিউ পেয়েছি। তবে হ্যাস ট্যাগ ব্যবহার করলে অবশ্যই সেটা আপনার টপিক রিলেটেড ট্যাগ ব্যবহার করবেন।

সতর্কতা

সেইম লিংকড অ্যাকাউন্ট

ফেসবুক পেজ জনপ্রিয় করার উপায় এর চিন্তাই আমরা প্রায়শই নানান প্রকার ভুল করে ফেলি। ফেসবুকের নতুন অ্যালগরিদম অনুসারে আপনাকে অ্যাকাউন্টের বিষয়ে বেশ কয়েকটি বিষয়ের দিকে লক্ষ্য রাখতে হবে। নতুবা আপনার পেজের অর্গানিক রিচ কমে যেতে পারে।

আমরা প্রথম অবস্থায় আমাদের পেজে কোন ভিডিও আপলোড করেই সেটা সাথে সাথে প্লে করে দেখি এবং আমাদের অ্যাডমিন অ্যাকাউন্ট থেকেই সেই ভিডিওটি শেয়ার করে থাকি।

তবে ফেসবুকের নতুন অ্যালগরিদম অনুসারে আপনাকে নিম্নোক্ত কাজ গুলো হতে বিরত থাকা উচিৎ –

  • যে অ্যাকাউন্ট দিয়ে আপনি পেজ তৈরি করেছেন অর্থাৎ অ্যাডমিন অ্যাকাউন্ট বা আপনার অন্য কোন অ্যাকাউন্ট যা আপনার অ্যাডমিন অ্যাকাউন্ট এর সাথে কানক্টেড, এমন কোন অ্যাকাউন্ট দিয়ে আপনার পেজের ভিডিও শেয়ার করবেন না।
  • যে ফোন নাম্বার বা ইমেইল দিয়ে পেজ তৈরি করেছেন সেই ফোন নাম্বার বা ইমেইল দিয়ে তৈরিকৃত ইনস্তাগ্রাম বা হোয়াটসঅ্যাপ অ্যাকাউন্ট দিয়ে ও আপনার পেজের ভিডিও শেয়ার করবেন না।

উপরোক্ত দুটি পন্থা অবলম্বনের দরুন আপনার মনিটাইজেশন বন্ধ বা স্ট্রাইক জনিত বড় কোন সমস্যা দেখা দেবে না ঠিকই কিন্তু এর দরুন আপনার পেজের অর্গানিক রিচ কমে যেতে পারে। যেটা একই সাথে আপনার পেজ ইনকাম এবং জনপ্রিয়তা দুটোই কমিয়ে দিতে পারে।

=শেষ কথা=

আজকের আর্টিকেলে আমরা জানতে পারলাম ফেসবুক পেজ জনপ্রিয় করার উপায় এবং কিভাবে আপনি আপনার পেজে অর্গানিক ট্রাফিক নিয়ে আসবেন।

পরবর্তী আর্টিকেলে আলোচনা করবো ফেসবুক মনিটাইজেশন সম্পর্কে খুটিনাটি। সেই পর্যন্ত ভালো থাকবেন সুস্থ থাকবেন।

Share this

Leave a Comment