কিওয়ার্ড রিসার্চ কিভাবে করতে হয়?

কিওয়ার্ড রিসার্চ এর ২য় পর্বে আজকের আলোচনার বিষয়, কিওয়ার্ড রিসার্চ কিভাবে করতে হয়? তাও আবার সম্পুর্ন ফ্রীতে।

আপনি একজন নিয়মিত ব্লগার কিন্তু কিওয়ার্ড রিসার্চ সম্পর্কে আপনার যথাযথ ধারণা নেই, তাহলে বুঝে নিন আপনার ব্লগিং ক্যারিয়ার মারাত্মক হুমকির মুখে। আপনার কনটেন্ট বা আর্টিকেল সমূহের মূল বিষয়বস্তু হলো কিওয়ার্ড। ইংরেজি আর্টিকেল গুলোর ক্ষেত্রে কিওয়ার্ড রিসার্চের পর্যাপ্ত সুযোগ-সুবিধা থাকলেও বাংলা কী ওয়ার্ড এর ক্ষেত্রে এটা সম্পূর্ণই ভিন্ন।

কেননা বিজ্ঞাপনদাতা কোম্পানিগুলো বাংলা কিওয়ার্ড এর ক্ষেত্রে তেমন অর্থ ব্যয় করে না বললেই চলে। তবে দিন দিন এই অবস্থার পরিবর্তন হচ্ছে এবং একই সাথে বাংলা কিওয়ার্ড গুলোতে সিপিসি বৃদ্ধি পাচ্ছে। তাহলে চলুন আলাচনা করা যাক, কিওয়ার্ড রিসার্চ কিভাবে করতে হয়?

কিওয়ার্ড রিসার্চ কিভাবে করতে হয়-তার পূর্বে যা জানা আবশ্যক

কিওয়ার্ড রিসার্চ কিভাবে করতে হয়? এর উত্তরের পূর্বে আপনাকে অবশ্যই জানতে হবে কোন কোন বিষয় বস্তুর উপর ভিত্তি করে একটি কিওয়ার্ডকে লাভজনক কিওয়ার্ড বলা যায়।

আচ্ছা, বুঝতে সমস্যা হলে আরো সহজ ভাবে বোঝানো যেতে পারে। যেমন – কিওয়ার্ড রিসার্চ করার ক্ষেত্রে কোন কোন বিষয়গুলো বিবেচনা করে আপনি আপনার কিওয়ার্ড বাছাই করবেন। সেগুলো হল-

  • Average Monthly Search
  • Competition/ Keyword Difficulty
  • CPC

Average Monthly Seach

কোন একটি কীওয়ার্ড বা শব্দ প্রতিমাসে গুগলে কতবার সার্চ করা হয় মূলত সেই পরিমান টি হল Average Monthly Search। যে কিওয়ার্ড গুলোর Monthly Search যত বেশি হবে সেই কিওয়ার্ড এর গুরুত্ব ততবেশি। অর্থাৎ কিওয়ার্ড বাছাই করার ক্ষেত্রে সর্বদা প্রথমে লক্ষ্য রাখতে হবে Monthly Search এর দিকে।

Competition/Keyword Difficulty

সঠিক কিওয়ার্ড রিসার্চ এর ক্ষেত্রে Monthly Search এর পরেই আসে Competition বা Keyword Difficulty। একটি কী ওয়ার্ড এর উপর মার্কেটে কেমন প্রতিযোগিতা হচ্ছে তাকেই মূলত কম্পিটিশন বলা হয়।

কী-ওয়ার্ড এর Competition তিনটি পর্যায়ে বিবেচনা করা হয়।

  • High
  • Medium
  • Low

High: যে সমস্ত কিওয়ার্ডের প্রতিযোগিতা অনেক বেশি সে গুলোকে High Competition Keyword বলে। অর্থাৎ উক্ত কীওয়ার্ড এর উপর আর্টিকেল লিখে সেটা গুগল সার্চে রেঙ্ক করানো খুবই কষ্টকর।

কিওয়ার্ড এর Competition বা Difficulty কে (%) আকারে ও প্রকাশ করা হয়। যে সমস্ত কিওয়ার্ড এর Difficulty 40 বা তার বেশি সেই সব কিওয়ার্ড গুলোকে High Competition বা High Difficulty কিওয়ার্ড বলা হয়।

Medium: যে সমস্ত কিওয়ার্ডের প্রতিযোগিতা খুব বেশি আবার খুব কমও নয় সে গুলোকে Medium competition keyword বলে। Medium competition keyword গুলো নিয়েও কাজ করা যায়। তবে সে ক্ষেত্রে স্বাভাবিকের চেয়ে একটু বেশি পরিশ্রম করতে হয়।

মোটামুটি Difficulty 25 থেকে 40 এর মধ্যে হলে তাকে Medium competition বা Medium Difficulty কিওয়ার্ড বলা হয়।

Low: যে সমস্ত কিওয়ার্ডের কম্পিটিশন তুলনামূলকভাবে কম মূলত সেগুলোকেই Low Competition Keyword বলা হয়। Low competition keyword কীওয়ার্ড এর উপর কাজ করা এবং তা র‌্যাংক করানো তুলনামূলকভাবে অনেক সহজ।

এক্ষেত্রে আপনি খুব কম পরিশ্রমে এবং কম ব্যাকলিংকের সাহায্য নিয়েই গুগল সার্চ ইঞ্জিনে আপনার আর্টিকেল র‌্যাংক করাতে পারবেন। যে সমস্ত কিওয়ার্ড এর Difficulty 25 বা তার কম সেগুলোই Low competition বা Low Difficulty কিওয়ার্ড।

CPC

CPC এর অর্থ হল Cost Per Click। অর্থাৎ কোন একটি বিজ্ঞাপনে প্রতি ক্লিক এর জন্য বিজ্ঞাপন দাতাকে কত টাকা পরিশোধ করতে হবে। এখানে সিপিসি কে High এবং Low দুটি অংশে বিভক্ত করা হয়ে থাকে।

আপনি যদি একজন ব্লগার হিসেবে CPC বুঝতে চান তাহলে বলা যায়, CPC হলো সেই মান যার দ্বারা নির্ণয় করা হয় আপনার ব্লগের কোন একটি বিজ্ঞাপনে প্রতি ক্লিকের জন্য আপনি কত টাকা পাবেন।

উন্নত দেশগুলো যেমন আমেরিকা কানাডা এবং ইউরোপের বিভিন্ন দেশে CPC এর পরিমাণ তুলনামূলকভাবে বেশি থাকে যার দরুণ সেই সব দেশ থেকে যদি কেউ আপনার ব্লগের কোন বিজ্ঞাপনে ক্লিক করে তাহলে আপনি সর্বোচ্চ পরিমাণ অর্থ পেতে পারেন। আবার যদি কম CPC ভুক্ত দেশগুলো থেকে কোন ভিজিটর আপনার ব্লগের বিজ্ঞাপনে ক্লিক করে তাহলে আপনি তুলনামূলকভাবে কম অর্থ পাবেন।

সুতরাং, কিওয়ার্ড রিসার্চ কিভাবে করতে হয়? সেটা জানার পূর্বে কিওয়ার্ড রিসার্চ সম্পর্কে উপরোক্ত ধারণা থাকা আবশ্যক।

কিওয়ার্ড রিসার্চ কিভাবে করতে হয়?

আপনার যদি বাজেটের সমস্যা না থাকে তাহলে অবশ্যই পেইড কিওয়ার্ড টুলসগুলো ব্যবহার করতে পারেন। কিন্তু আমরা যারা নতুন তাদের ক্ষেত্রে পেইড কিওয়ার্ড টুলস ব্যবহার করা খুবই কষ্টসাধ্য।

কেননা পেইড কিওয়ার্ড টুলস গুলো ব্যবহার করার জন্য অনেক বড় পরিমাণ অর্থ খরচ করতে হয়। কিন্তু চিন্তার কোন কারণ নেই, ফ্রী কিওয়ার্ড টুলস গুলো ব্যবহার করে আপনি খুব সহজেই উপযুক্ত ও মূল্যবান কিওয়ার্ডগুলো বাছাই করতে পারবেন।

ফ্রী কিওয়ার্ড টুলস গুলো ব্যবহার করে সঠিক কিওয়ার্ড রিসার্চ কিভাবে করতে হয় বা কিওয়ার্ড রিসার্চ এর জন্য আমি যে প্রক্রিয়া অবলম্বন করি আজ তা আপনাদের সাথে আলোচনা করবো।

কিওয়ার্ড রিসার্চ এর জন্য আমি যে প্রক্রিয়া অনুসরন করি।

  1. Google Keyword Planner
  2. Ubersuggest
  3. Google Advanced Search Tricks

1. Google Keyword Planner দিয়ে কিওয়ার্ড রিসার্চ কিভাবে করতে হয়?

ফ্রিতে কিওয়ার্ড রিসার্চের জন্য সবচেয়ে জনপ্রিয় একটি মাধ্যম হচ্ছে Google Keyword Planner। এখানে কিওয়ার্ড রিসার্চ এর জন্য আপনাকে কোন প্রকার অর্থ ব্যয় করতে হবে না শুধুমাত্র একটি AdWords Account এর মাধ্যমে সাইন-ইন করলেই যথেষ্ট। তাহলে চলুন দেখে নেওয়া যাক Google Keyword Planner ব্যবহার করে কিওয়ার্ড রিসার্চ কিভাবে করতে হয়

Google Keyword Planner এ আপনার মূল কী-ওয়ার্ডটি টাইপ করুন অতঃপর GET RESULTS এ ক্লিক করার সাথে সাথেই গুগল আপনাকে দেখিয়ে দেবে আপনার প্রদত্ত কিওয়ার্ডটি প্রতিমাসে কতবার গুগলে সার্চ হয়, এর কম্পিটিশন কিরূপ, এবং কিওয়ার্ডটির সিপিসি কত।

প্রথমে গুগলে গিয়ে “Google Keyword Planner” লিখে সার্চ করুন অথবা এখানে ক্লিক করুন

আপনার যদি AdWords Account না থাকে, তাহলে খুব সহজে ২ থেকে ৩ টি স্টেপস এর মাধ্যমে AdWords Account খুলে নিতে পারবেন।

কিওয়ার্ড রিসার্চ কিভাবে করতে হয়

উপরের ছবিটি লক্ষ্য করুন। এটি হল Google Keyword Planner এর ইন্টারফেস। কিওয়ার্ড রিসার্চ এর জন্য Discover new keywords বাটনে ক্লিক করুন।

কিওয়ার্ড রিসার্চ কিভাবে করতে হয় - Keyword Planner

এখানে আপনার কাঙ্খিত কিওয়ার্ডটি টাইপ করুন অর্থাৎ আপনি যে বিষয়ে আর্টিকেল লিখছেন। অতপর Get Results এ ক্লিক করুন।

বিশেষ দ্রষ্টাব্য: কিওয়ার্ড টাইপ করার নিচের দিকে লক্ষ্য করুন, এখানে Language এবং Location সিলেক্ট করতে পারবেন। প্রথম অবস্থায় Location বাংলাদেশ সিলেক্ট করা থাকবে। আপনি এখানে নিজের মত Location সিলেক্ট করে নিতে পারবেন।

আমি যেহেতু ইংরেজি কন্টেন্ট এর জন্য কিওয়ার্ড রিসার্চ করব সেহেতু “Location বাংলাদেশ” ডিলিট করে “All locations” ‍সিলেক্ট করব।

keyword planner result - কিওয়ার্ড রিসার্চ কিভাবে করতে হয়

পরবর্তী পেজে আপনার কাঙ্খিত কিওয়ার্ডের ফলাফল প্রদর্শন করা হবে। এখন “how to start a blog” কিওয়ার্ডটির ফলাফল নিচে বিস্তারিত আলোচনা করা হল-

Keyword/কিওয়ার্ড

Keyword নামক প্রথম ঘরটিতে আপনার কাঙ্খিত কিওয়ার্ডটির পাশাপাশি আরো কি কি শব্দ ব্যবহার করে গুগলে সার্চ করা হয় সে বিষয়ে অনেক গুলো অতিরিক্ত Suggestions প্রদান করা হয়েছে।

অর্থাৎ আপনি আপনার মূল কিওয়ার্ড এর সাথে উক্ত কিওয়ার্ড সমূহ ও আপনার আর্টিকেলে ব্যবহার করতে পারেন। এতে করে আপনার ব্লগ বা ওয়েবসাইটে অতিরিক্ত ভিজিটর আসার সম্ভাবনা বৃদ্ধি পাবে।

দ্বিতীয় কলামে দেখতে পাচ্ছেন Average Monthly Searches। অর্থাৎ উক্ত কিওয়ার্ড দিয়ে প্রতিমাসে গুগোল এ কতজন ভিজিটর সার্চ করেন।

How to start a blog” এই কীওয়ার্ড দিয়ে গুগলে প্রতিমাসে 100k (1 লক্ষ) থেকে 1-million (10 লক্ষ) ভিজিটর সার্চ করেন। অপরদিকে Keyword Planner এর সাজেস্ট করা কী-ওয়ার্ড গুলোর মধ্যে How to create a blog, How to make a blog, How to blog এ যথাক্রমে 10k ( 10 হাজার) থেকে 100k (1 লক্ষ) ভিজিটর প্রতিমাসে সার্চ করেন।

সঠিক কীওয়ার্ড বাছাই করার ক্ষেত্রে সর্বদা প্রথমে লক্ষ্য রাখতে হবে Average Monthly Searches এর দিকে। কেননা আপনার ব্লগ বা ওয়েবসাইট থেকে তখনই ইনকাম হবে যখন আপনার সাইটে ভিজিটর আসবে। সুতরাং সর্বদা বেশি মান্থলি সার্চ কিওয়ার্ড বাছাই করার চেষ্টা করবেন।

Competition/কম্পিটিশন

তৃতীয় কলামে দেখতে পাচ্ছেন উক্ত কিওয়ার্ড সমূহের কম্পিটিশন কিরূপ। এখানে কীওয়ার্ড কম্পিটিশন কে High, Medium এবং Low এই তিনটি পর্যায়ে বিবেচনা করা হয়।

অনেকে Google Keyword Planner এর কীওয়ার্ড কম্পিটিশন কে Keyword Difficulty হিসেবে বিবেচনা করে থাকেন। যেটা সম্পূর্ণ একটি ভুল ধারণা।

বিশেষ দ্রষ্টব্য: Google Keyword Planner এ যে Competition দেখানো হয় সেটি মূলত কোন Keyword Difficulty নয়। এটি হচ্ছে মূলত কোন একটি নির্দিষ্ট কীওয়ার্ড এর উপর কতজন বিজ্ঞাপন দিচ্ছে তার একটি ফলাফল। অর্থাৎ আপনি যদি মনে করেন, keyword planner এর Competition দেখে Keyword Difficulty নির্বাচন করবেন তাহলে আপনার ধারনাটি সম্পুর্ন ভুল।

অর্থাৎ এখানে High কম্পিটিশন দ্বারা বুঝানো হয়েছে উক্ত কিওয়ার্ডে অনেক বেশি পরিমাণ বিজ্ঞাপনদাতা বিজ্ঞাপন দিয়েছেন। এবং অপর দিকে Low Competition দ্বারা বোঝানো হয়েছে উক্ত কিওয়ার্ডে তুলনামূলকভাবে কম বিজ্ঞাপনদাতা বিজ্ঞাপন প্রচার করছেন।

CPC/Bid

৪র্থ এবং ৫ম কলাম দুটি লক্ষ্য করুন। এখানে “Top of page bid” কে “High” এবং “Low” দুটি অংশে দেখানো হয়েছে। প্রথমে আলোচনা করা যাক “Top of page bid” সম্পর্কে।

এখানে “Low bid” দ্বারা বোঝানো হয়েছে- কোন একজন বিজ্ঞাপনদাতা উক্ত কিওয়ার্ডে সর্বনিম্ন কি পরিমান অর্থ প্রতি অ্যাড ক্লিক এর জন্য পে করবে। অপরদিকে “High bid” দ্বারা বোঝানো হয়েছে- কোন একজন বিজ্ঞাপনদাতা উক্ত নির্দিষ্ট কীওয়ার্ড এর উপর সর্বোচ্চ কি পরিমাণ অর্থ প্রতি ক্লিকের জন্য পরিশোধ করবে।

অর্থাৎ যে কিওয়ার্ডের “Bid” তুলনামূলকভাবে বেশি সেই কিওয়ার্ড টি অনেক বেশি লাভজনক।

অর্থাৎ “Top of page bid” বেশি হবার কারনে- কেউ যদি উক্ত কিওয়ার্ড দিয়ে গুগলে সার্চ করে আপনার ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে এবং আপনার ব্লগ বা ওয়েবসাইটে থাকা কোন অ্যাড এ ক্লিক করে তাহলে আপনি সর্বোচ্চ পরিমাণ অর্থ পাবেন।

তবে বিভিন্ন দেশভেদে কমিশন এর পরিমাণ বিভিন্ন রকম হয়ে থাকে। যেমন আমেরিকা, কানাডা ইউরোপ, এসব দেশ থেকে যদি কোন ভিজিটর উক্ত কিওয়ার্ড এর মাধ্যমে আপনার ওয়েবসাইটটি ভিজিট করে কোন অ্যাড বা বিজ্ঞাপনে এ ক্লিক করে তাহলে আপনি সর্বোচ্চ পরিমাণ অর্থ পেতে পারেন।

তবে, যে সমস্ত দেশে সিপিসি এর পরিমাণ কম যেমন বাংলাদেশ এর কথাই বলা যাক, বাংলাদেশ এর মত কম সিপিসি ভুক্ত দেশগুলো থেকে যদি কোন ভিজিটর উক্ত কিওয়ার্ড এর মাধ্যমে আপনার ব্লগ বা সাইটে প্রবেশ করে কোন অ্যাড বা বিজ্ঞাপনে ক্লিক করে তাহলে আপনি তুলনামূলকভাবে অনেক কম কমিশন বা অর্থ পাবেন।

Keyword Planner থেকে বাছাই কৃত কিওয়ার্ড

আমরা Google Keyword Planner থেকে মোটামুটি ৩ টি কিওয়ার্ড বাছাই করলাম।

KeywordAverage Monthly SearchesTop of Page bid
How to start a blog100K – 1M8.03
How to make a blog10K – 100K4.87
How to create a blog10K – 100K2.88

এখানে লক্ষ্য করুন, আমাদের প্রথম কিওয়ার্ড হল How to start a blog যার Average Monthly Searches এবং Top of Page bid সবচেয়ে বেশি। এরপর রয়েছে How to make a blog এবং How to create a blog। এখন আমরা দেখব এই তিনটি কিওয়ার্ডের উপর কতজন ব্লগার আর্টিকেল লিখেছেন এবং তারা কোন পজিশনে র‌্যাংক করছেন।

এর জন্য আমরা ব্যবহার করব “Google Search Suggestions” এবং কিছু Advanced Tricks। তবে তার আগে ‍আমরা Google Keyword Planner এর মত ফ্রি আরো একটি জনপ্রিয় কিওয়ার্ড রিসার্চ টুল “Ubersuggest” ব্যবহার করব আমাদের কাঙ্খিত কিওয়ার্ড এর জন্য।

2. Ubersuggest দিয়ে কিওয়ার্ড রিসার্চ কিভাবে করতে হয়?

কিওয়ার্ড রিসার্চ এর জন্য আমি দ্বিতীয় যে টুলটি ব্যবহার করি সেটা হল Ubersuggest। Google Keyword Planner এর মতো Ubersuggest ও ফ্রি একটি কিওয়ার্ড রিসার্চ টুল।

Ubersuggest এর মাধ্যমে আপনি খুব সহজেই Keyword Planner এর থেকেও কিওয়ার্ড সম্পর্কে অনেক বেশি তথ্য পাবেন। Ubersuggest থেকে আপনি আপনার কাঙ্খিত কিওয়ার্ড সম্পর্কে এমন সব তথ্য পাবেন যা অন্য কোন রিসার্চ টুলস আপনাকে ফ্রিতে সেই সেবা প্রদান করবে না।

তাহলে চলুন দেখে নেওয়া যাক Ubersuggest ব্যবহার করে কিওয়ার্ড রিসার্চ কিভাবে করতে হয়Ubersuggest থেকে কিওয়ার্ড রিসার্চ এর জন্য এখানে ক্লিক করুন।

কিওয়ার্ড রিসার্চ কিভাবে করতে হয়- Ubersuggest

এটি Ubersuggest এর হোম পেজ। এখানে “Enter a domain or a keyword” বক্সে আপনার কাঙ্খিত কিওয়ার্ড টাইপ করুন। অতপর পাশের বক্সটিতে আপনি কোন দেশের জন্য কিওয়ার্ড রিসার্চ করতে চান সেই দেশ সিলেক্ট করুন, অর্থাৎ যে দেশে আপনি আপনার কিওয়ার্ডটি র‌্যাংক করাতে চান।

ডিফল্ট ভাবে English/United States সিলেক্ট করা থাকবে। আমি যেহেতু United States এ আমার অর্টিকেল র‌্যাংক করাতে চাই তাই এটা English/United States এই রাখবো। অতপর Search বাটনে ক্লিক করবো।

Ubersuggest keyword research

উপরের ছবিটি লক্ষ্য করুন। প্রথম বক্সটিতে দেখাচ্ছে Search Volume = 60,500 অর্থাৎ আমেরিকা থেকে প্রতি মাসে 60,500 জন মানুষ এই কিওয়ার্ড দিয়ে সার্চ করেন।

এরপর রয়েছে SEO Difficulty, এটিকেই মূলত Keyword Difficulty বলা হয়। এখানে দেখা যাচ্ছে SEO Difficulty = 44 অর্থাৎ এই কিওয়ার্ডটির Keyword Difficulty = Medium। সুতরাং এই কিওয়ার্ডে আপনার অর্টিকেল র‌্যাংক করাতে হলে একটু পরিশ্রম করতে হবে।

এরপর রয়েছে Paid Difficulty = 66 অর্থাৎ আপনি যদি এই কিওয়ার্ডের উপর Advertise বা বিজ্ঞাপন দিতে চান তাহলে সেক্ষেত্রেও আপনাকে তুলনামূলক একটু বেশি অর্থ খরচ করতে হবে। এবং তার পাশে রয়েছে CPC বা Cost Per Click = $9.34

(CPC সম্পর্কে উপরে আলোচনা করা হয়েছে)

Ubersuggest related keyword

একটু নিচের দিকে স্ক্রল করলেই দেখতে পাবেন Ubersuggest আমাদের কিওয়ার্ডের সাথে আরো কিছু কিওয়ার্ড সাজেস্ট করেছে যেখানে 3 টি কিওয়ার্ড এর 25 এর মধ্যে রয়েছে। অর্থাৎ এই 3টি কিওয়ার্ডের Keyword Difficulty = Low – যার অর্থ হল এই 3টি কিওয়ার্ডের মাধ্যমে অর্টিকেল লিখে তা খুব সহজেই গুগলে র‌্যাংক করা সম্ভব।

Ubbersuggest Ranking & ‍social

আর একটু নিচের দিকে স্ক্রল করলেই দেখতে পাবেন, আপনার কাঙ্ক্ষিত কিওয়ার্ডের উপর কোন কোন ওয়েবপেজ এই মুহূর্তে গুগলে রেংকিং এ রয়েছে, এবং তাদের মান্থলি ভিজিটর কত, উক্ত আর্টিকেল গুলোতে কতগুলো ব্যাকলিংক রয়েছে, এবং সেই আর্টিকেলগুলো ফেসবুক এবং পিন্টারেস্টে কতগুলো শেয়ার করা হয়েছে।

প্রথম লিংকটি উদাহরণ বলা যেতে পারে, প্রথম আর্টিকেলটি United States এ গুগলে প্রথম পেজে র‌্যাংক করছে এবং উক্ত আর্টিকেলটির মান্থলি আনুমানিক ভিউ 2935, ব্যাকলিংক সংখ্যা 31, এবং ফেসবুক ও পিন্টারেস্টে শেয়ার যথাক্রমে 1711 এবং 375589

উল্লেখ্য: Content Idea সহ কিওয়ার্ড এর এইযে পরিসংখ্যান এটা সম্পূর্ণটাই আনুমানিক। কেননা কোন কিওয়ার্ড টুলসই 100% নির্ভুল ফলাফল প্রদান করতে পারে না।

সুতরাং আমরা গুগল কিওয়ার্ড প্ল্যানার থেকে তিনটি কিওয়ার্ড এবং Ubersuggest থেকে keyword difficulty low এর মধ্যে দুইটি কীওয়ার্ড নিতে পারি:

KeywordsKeyword DifficultyMonthly ViewCPC
How to start a blog for free255,400$7.64
How to start a blog free254,400$7.06
কিওয়ার্ড রিসার্চ কিভাবে করতে হয় এই পর্বে আমরা”Google Keyword Planner” এবং “Ubersuggest” থেকে পছন্দ করা কিওয়ার্ডগুলোকে “Google Advanced Search Tricks” এর মাধ্যমে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে উপযুক্ত কিওয়ার্ডটি সিলেক্ট করব।

GoogleAdvanced Search Tricksএর মাধ্যমে আমরা জানতে পারব উক্ত কি-ওয়ার্ড সমূহের উপর আর্টিকেল তৈরি করে তা গুগোল এ র‌্যাংক করা আমাদের পক্ষে সম্ভব কিনা অথবা সম্ভব হলেও তা কতটুকু কষ্ট সাধ্য।

3. Google Search এর মাধ্যমে কিওয়ার্ড রিসার্চ কিভাবে করতে হয়?

Google Search Suggestions এর কিছু Advanced টেকনিক ব্যবহার করে আপনি খুব সহজে জানতে পারবেন আপনার কাঙ্খিত কিওয়ার্ডের উপর কতজন ব্লগার আর্টিকেল লিখেছেন এবং আপনি কি উক্ত কিওয়ার্ডের উপর আর্টিকেল লিখে Google Search Result এর Top 10 পজিশনে আসতে পারবেন কিনা।

Google search tricks

উপরের ছবিটি লক্ষ্য করুন, Keyword Planner থেকে সিলেক্ট করা How to start a blog লিখে গুগলে সার্চ করার পর গুগল মামা আমাকে 5,860,000,000 অর্থাৎ পাঁচ শত ছিয়াশি কোটি ফলাফল প্রদর্শন করেছে।

কি! দেখেই মাথা ঘুরছে? অবশ্য মাথা ঘোরারই কথা। আপনার কিওয়ার্ডে যদি গুগল পাঁচ শত ছিয়াশি কোটি ফলাফল প্রদর্শন করে তাহলে আপনি কিভাবে র‌্যাংক করবেন? আসলে বিষয়টি মোটেও এমন নয়। আপনি যখন গুগলে কোন বিষয়ে সার্চ করবেন, তখন গুগল সেই বিষয় সম্পর্কিত 100% রিলেভেন্ট এবং 1% রিলেভেন্ট সমস্ত ফলাফল প্রদর্শন করে।

এখানে আপনাকে কিছু Tricks ব্যবহার করতে হবে।

Google Search Tricks 1

Google keyword search
"How to start a blog"

উপরের ছবিটি লক্ষ্য করুন। গুগল সার্চ বক্সে আপনার কিওয়ার্ডের প্রথমে এবং শেষে (“) চিহ্নটি দিয়ে Enter প্রেস করুন। এখন দেখুন সার্চ ফলাফল 5,860,000,000 থেকে 16,500,000 তে চলে এসেছে। তার মানে উক্ত কিওয়ার্ডটি আসলে 16,500,000 জন ব্লগার তাদের আর্টিকেলে ব্যবহার করেছে।

এখন আপনাকে দেখতে হবে 16,500,000 টি ওয়েবসাইটের মধ্যে কতজন ভালো ভাবে তাদের আর্টিকেলের SEO করেছে।

Google Search Tricks 3

keyword search
allintitle:How to start a blog

উপরের ছবিটি লক্ষ্য করুন। গুগল সার্চ বক্সে আপনার কিওয়ার্ডের প্রথমে allintitle: টাইপ করে Enter প্রেস করুন। এখন দেখুন সার্চ ফলাফল 16,500,000 থেকে তা মাত্র 126,000 এ চলে এসেছে। অর্থাৎ 16,500,000 টি আর্টিকেলের মধ্যে মাত্র 126,000 টি আর্টিকেলের Title এ উক্ত কিওয়ার্ডটি ব্যবহার করা হয়েছে।

Google Search Tricks 2

google keyword search
allinurl:How to start a blog

উপরের ছবিটি লক্ষ্য করুন। গুগল সার্চ বক্সে আপনার কিওয়ার্ডের প্রথমে allinurl: টাইপ করে Enter প্রেস করুন। এখন দেখুন সার্চ ফলাফল 126,000 থেকে তা মাত্র 44,300 তে চলে এসেছে। অর্থাৎ 126,000 টি আর্টিকেলের মধ্যে মাত্র 44,300 টি আর্টিকেলের URL বা Permalink এ উক্ত কিওয়ার্ডটি ব্যবহার করা হয়েছে।

সুতরাং 44,300 ওয়েবসাইটের মধ্যে এগিয়ে থাকতে হলে আপনাকে অবশ্যই আপনার আর্টিকেলের URL বা Permalink এ উক্ত কিওয়ার্ডটি ব্যবহার করতে হবে।

এখন Ubersuggest থেকে Low Difficulty সাজেস্ট করা কিওয়ার্ডটি “How to start a blog for free” GoogleAdvanced Search Tricks এর মাধ্যমে পরীক্ষা করে দেখা যাক।

Google keyword search

এখানে লক্ষ্য করুন Ubersuggest থেকে Low Difficulty এর “How to start a blog for free” কিওয়ার্ডটি মাত্র 1790 জন ব্লগার তাদের আর্টিকেলের টাইটেলে উক্ত কী-ওয়ার্ডটি ব্যবহার করেছে। সুতরাং সঠিকভাবে অন পেজ এসইও করার মাধ্যমে আপনি খুব সহজেই এই কিওয়ার্ডটির মাধ্যমে গুগলে র‌্যাংক করতে পারবেন।

কিওয়ার্ড রিসার্চ কিভাবে করতে হয় তা জানার পূর্বে On-Page SEO সম্পর্কে ধারণা থাকা আবশ্যক। On-Page SEO সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন।

সিদ্ধান্ত

এখন আপনি চাইলে “How to start a blog for free” কী-ওয়ার্ড টিকে মূল কিওয়ার্ড হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন যার মাধ্যমে খুবই কম পরিশ্রমের মাধ্যমে আপনি আর্টিকেল তৈরি করে তা গুগলে র‌্যাংক করাতে পারবেন, তবে আপনি যদি কিওয়ার্ড প্ল্যানার থেকে প্রথম কী-ওয়ার্ডটি তথা “How to start a blog” এই কিওয়ার্ডটি নিয়ে আর্টিকেল তৈরি করতে চান তাহলে আপনাকে অবশ্যই একটু বেশি পরিশ্রম করতে হবে।

সুতরাং কোন একটি নির্দিষ্ট কী-ওয়ার্ড কে ফোকাস করে আর্টিকেল তৈরি না করে মোটামুটি দুই থেকে তিনটি কিওয়ার্ড কে টার্গেট করুন। যেমন আপনি “How to start a blog for free” কী-ওয়ার্ড টিকে মূল কিওয়ার্ড এবং তার পাশাপাশি “How to start a blog” কী-ওয়ার্ড টি ও ব্যবহার করতে পারেন এতে আপনার গুগল সার্চ এ র‌্যাংক করার সম্ভাবনা অনেকাংশে বৃদ্ধি পাবে

Google Search এর এই Tricks গুলো বাংলা কিওয়ার্ড রিসার্চ এর ক্ষেত্রেও অনেক কার্যকরী।

= শেষ কথা =

কিওয়ার্ড রিসার্চ এর আজকের পর্বে আমরা জানতে পারলাম, Google Keyword Planner, Ubersuggest এবং Google Advanced Search Tricks ব্যবহার করে উপযুক্ত ও সঠিক কিওয়ার্ড রিসার্চ কিভাবে করতে হয়।

পরবর্তী পর্বে আমরা আলোচনা করব, কিভাবে বাংলা Keyword Research করতে হয় এবং অতি গুরুত্বপূর্ণ কিছু ব্রাউজার এক্সটেনশন (Browser Extension) সম্পর্কে যা আপনাকে আপনার প্রতিযোগীদের থেকে সর্বদা একধাপ এগিয়ে রাখবে। সেই পর্যন্ত ভালো থাকবেন – সুস্থ থাকবেন 🙂

Share this

2 thoughts on “কিওয়ার্ড রিসার্চ কিভাবে করতে হয়?”

  1. একটি লাইক বাটন এর অপশন থাকলে লাইক দিতাম। খুবই উপকারি পোষ্ট।

    Reply

Leave a Comment